সাহু সিজদার নিয়ম

নামাজের মধ্যে যদি কোন ওয়াজিব ছুটে যায় অথবা কোন এক বা একাধিক ভুল হয় তাহলে সাহু সিজদা (সিজদা সাহু ) দেওয়া ওয়াজিব হয়। সিজদা সাহু দিলে এতে নামাজ শুদ্ধ হয়ে যাবে। যদি সিজদা সাহু না করা হয় তাহেল নতুন করে নামাজ আদায় করতে হবে। তবে নামাজে কোন ফরজ ছুটে গেলে, পুনরাই নামাজ আদায় করতে হবে।

সাহু সিজদার নিয়ম

শেষ বৈঠকে শুধু আত্তাহিয়্যাতু পড়তে হবে, এবং ডান দিকে একবার সালাম ফিরিয়ে الله اكبر বলে, পরপর দুইটি সিজদা করবে। সিজদা ২টি নামাজের অন্যান্য সিজদার মতই হবে। ২ সিজদা শেষ করার পর বসে আবার ‘আত্তাহিয়্যাতু’-‘দুরুদ শরী’-‘দুআয়ে মাছূরা’ পড়ে দুই দিকে সালাম ফিরাবে।

ইখলাস ও নিয়ত কাকে বলে?

সাহু সিজদার নিয়ম : কিছু হাদিস

عَن عَبدِ اللهِ ابنِ بُحَينَةَ (رض) أَنَّهُ قَالَ صَلَّى لَنَا رَسُولُ اللهِ (صلى) رَكعَتَينِ مِن بَعضِ الصَّلَوَاتِ ثُمَّ قَامَ فَلَمْ يَجْلِسْ فَقَامَ النَّاسُ مَعَهُ فَلَمَّا قَضَى صَلاَتَهُ وَنَظَرْنَا تَسْلِيمَهُ كَبَّرَ قَبْلَ التَّسْلِيمِ فَسَجَدَ سَجْدَتَيْنِ وَهُوَ جَالِسٌ ثُمَّ سَلَّمَ‏.‏

আবদুল্লাহ্ ইবনু বুহায়নাহ্ (রা) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, কোন এক সালাতে আল্লাহর রাসূল (সা) দুই রাকআত আদায় করে না বসে দাঁড়িয়ে গেলেন। মুসল্লীগণ তাঁর সঙ্গে দাঁড়িয়ে গেলেন। যখন তাঁর নামাজ সমাপ্ত করার সময় হলো এবং আমরা তাঁর সালাম ফিরানোর অপেক্ষা করছিলাম, তখন তিনি সালাম ফিরানোর পূর্বে তাকবীর বলে বসে বসেই দু’টি সিজদা্ করলেন। অতঃপর সালাম ফিরালেন।

عَنْ عَبْدِ اللهِ أَنَّ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم صَلَّى الظُّهْرَ خَمْسًا فَقِيلَ لَهُ أَزِيدَ فِي الصَّلاَةِ فَقَالَ وَمَا ذَاكَ قَالَ صَلَّيْتَ خَمْسًا فَسَجَدَ سَجْدَتَيْنِ بَعْدَ مَا سَلَّمَ

আবদুল্লাহ্ (রাযি.) হতে বর্ণিত। আল্লাহর রাসূল (সা) যুহরের সালাত পাঁচ রাক‘আত আদায় করলেন। তাঁকে জিজ্ঞেস করা হল, সালাত কি বৃদ্ধি করা হয়েছে? তিনি বললেন, এ প্রশ্ন কেন? (প্রশ্নকারী) বললেন, আপনি তো পাঁচ রাক‘আত সালাত আদায় করেছেন। অতএব তিনি সালাম ফিরানোর পর দু’টি সিজদা্ করলেন।

রাসূল (সা)-এর নামাজে ভুল ও সাহু সিজদা

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ ـ رضى الله عنه ـ قَالَ صَلَّى بِنَا النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم الظُّهْرَ أَوِ الْعَصْرَ فَسَلَّمَ، فَقَالَ لَهُ ذُو الْيَدَيْنِ الصَّلاَةُ يَا رَسُولَ الله أَنَقَصَت فَقَالَ النَّبِي (ص) لأَصْحَابِهِ ‏أَحَق مَا يَقُولُ‏‏‏ قَالُوا نَعَم‏ فَصَلَّى رَكعَتَينِ أُخْرَيَينِ ثُمَّ سَجَدَ سَجدَتَينِ‏‏ قَالَ سَعدٌ وَرَأَيتُ عُروَةَ بنَ الزُّبَيرِ صَلَّى مِنَ الْمَغرِبِ رَكعَتَينِ فَسَلمَ وَتَكَلمَ ثُم صَلى مَا بَقِي وَسَجَدَ سَجدَتَينِ وَقَالَ هَكَذَا فَعَلَ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم‏.‏

আবূ হুরাইরাহ্ (রাযি.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবী (সা) আমাদের নিয়ে যুহর বা আসরের সালাত আদায় করলেন এবং সালাম ফিরালেন। তখন যুল-ইয়াদাইন (রাযি.) তাঁকে জিজ্ঞেস করলেন, ইয়া আল্লাহর রাসূল! সালাত কি কম হয়ে গেল? নবী (সা) তাঁর সাহাবীগণকে জিজ্ঞেস করলেন, সে যা বলছে, তা কি ঠিক? তাঁরা বললেন: হা। তখন তিনি আরও দুই রাকাত নামাজ পড়লেন। পরে আও দুটি সিজদা দিলেন। সাদ (রহ.) বলেন, আমি উরওয়াহ ইবনু যুবায়র (রহ.)-কে দেখেছি, তিনি মাগরিবের দু’ রাক‘আত সালাত আদায় করে সালাম ফিরালেন এবং কথা বললেন। পরে অবশিষ্ট সালাত আদায় করে দুটি সাজ্দাহ্ করলেন এবং বললেন, নবী (সা) এ রকম করেছেন।

হাফেজী কুরআন শরীফ

শয়তান নামাজে ওয়াসওয়াসা সৃষ্টি করে

 عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ (رض) قَالَ قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم إِذَا نُودِيَ بِالصَّلاَةِ أَدْبَرَ الشَّيْطَانُ وَلَهُ ضُرَاطٌ حَتَّى لاَ يَسْمَعَ الأَذَانَ فَإِذَا قُضِيَ الأَذَانُ أَقْبَلَ فَإِذَا ثُوِّبَ بِهَا أَدْبَرَ فَإِذَا قُضِيَ التَّثْوِيبُ أَقْبَلَ حَتَّى يَخْطِرَ بَيْنَ الْمَرْءِ وَنَفْسِهِ يَقُولُ اذكُر كَذَا وَكَذَا مَا لَم يَكُن يَذكُرُ حَتَّى يَظَلَّ الرَّجُلُ إِنْ يَدْرِي كَمْ صَلَّى فَإِذَا لَمْ يَدْرِ أَحَدُكُمْ كَمْ صَلَّى ثَلاَثًا أَوْ أَرْبَعًا فَلْيَسْجُدْ سَجْدَتَيْنِ وَهْوَ جَالِسٌ‏‏.‏

আবূ হুরাইরাহ্ (রাযি.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, আল্লাহর রাসূল (সা) বলেছেনঃ যখন সালাতের জন্য আযান দেয়া হয়, তখন শয়তান পিঠ ফিরিয়ে পালায় যাতে আযান শুনতে না পায় আর তার পশ্চাদ-বায়ু সশব্দে নির্গত হতে থাকে। আযান শেষ হয়ে গেলে সে এগিয়ে আসে। আবার সালাতের জন্য ইক্বামাত(ইকামত/একামত) দেওয়া হলে সে পিঠ ফিরিয়ে পালায়। ইক্বামাত(ইকামত/একামত) শেষ হয়ে গেলে আবার ফিরে আসে। এমনকি সে সালাত আদায়রত ব্যক্তির মনে ওয়াস্ওয়াসা সৃষ্টি করে এবং বলতে থাকে, অমুক অমুক বিষয় স্মরণ কর, যা তার স্মরণে ছিল না। এভাবে সে ব্যক্তি কত রাক‘আত সালাত আদায় করেছে তা স্মরণ করতে পারে না। তাই, তোমাদের কেউ তিন রাক‘আত বা চার রাক‘আত সালাত আদায় করেছে, তা মনে রাখতে না পারলে বসা অবস্থায় দু’টি সিজদা্ করবে।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَأَنَّ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم قَالَ إِنَّ أَحَدَكُمْ إِذَا قَامَ يُصَلِّي جَاءَ الشَّيْطَانُ فَلَبَسَ عَلَيْهِ حَتَّى لاَ يَدْرِيَ كَمْ صَلَّى فَإِذَا وَجَدَ ذَلِكَ أَحَدُكُمْ فَلْيَسْجُدْ سَجْدَتَيْنِ وَهُوَ جَالِسٌ.

আবূ হুরাইরাহ্ (রাযি.) হতে বর্ণিত। আল্লাহর রাসূল (সা) বলেছেনঃ তোমাদের কেউ সালাতে দাঁড়ালে শয়তান এসে তাকে সন্দেহে ফেলে, এমনকি সে বুঝতে পারে না যে, সে কত রাক‘আত সালাত আদায় করেছে। তোমাদের কারো এ অবস্থা হলে সে যেন বসা অবস্থায় দু’টি সিজদা্ করে।